আদমশুমারির ইতিহাস ও আদ্যোপান্ত

আদমশুমারি

Peopleনির্দিষ্ট কোনো দেশ বা অঞ্চলের মানুষ গণনাকে আদমশুমারি বলা হয়। পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই এই আদমশুমারির ব্যবস্থা রয়েছে। রাজস্ব নির্ধারণ, যুদ্ধের জন্য সেনাবাহিনীতে লোক নিয়োগ ইত্যাদি কারণে বহু আগে থেকেই এর প্রচলন শুরু হয়। ইংল্যান্ডের রাজা প্রথম উইলিয়াম ১০৮৬ খ্রিস্টাব্দে 'ডোমসডে বুক' নামে জমি বা জমিতে বসবাসকারী মানুষের একটি জরিপ পরিচালনা করেন, যা ইতিহাসের প্রথম নথিভুক্ত আদমশুমারি হিসেবে পরিচিত। আঠারো শতকে আদমশুমারির আধুনিক যুগ শুরু হয়। ১৭৯০ সালে যুক্তরাষ্ট্র প্রথম আধুনিক আদমশুমারি পরিচালনা করে। পরবর্তীকালে ইংল্যান্ড ও ফ্রান্সে ১৮০১ সালে আদমশুমারি করা হয়। ভারতবর্ষে ১৫৮২ সালে সম্রাট আকবরের রাজত্বকালে মৌজাভিত্তিক অধিসত্ত্ব গ্রহনকারীদের গণনা করে প্রথম জরিপ করা হয়, যা ইতিহাসে টোডরমলের বন্দোবস্ত হিসেবে পরিচিত। বাংলায় ১৮৭২ সালে করা প্রথম আদমশুমারির পর ১৮৮৯ ও ১৮৯১ সালেও আদমশুমারি সম্পন্ন হয়। বাংলাদেশে ১৯৭৪ সালে প্রথম আদমশুমারি করা হয়। একটি জনগোষ্ঠীর বর্তমান ও ভবিষ্যৎ জনসংখ্যা এবং জনসংখ্যার বৃদ্ধিগত জনমিতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ধারণা পেতে আদমশুমারির গুরুত্ব অপরিসীম।

আদমশুমারি কত বছর পর পর হয়?

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো ১০ বছর পর পর আদমশুমারি পরিচালনা করে থাকে।

আদমশুমারির ধাপ কয়টি?

আদমশুমারি তিনটি ধাপে সম্পন্ন করা হয়ে থাকে। যথা ፦ 
  1. মূল গণনা
  2. পোস্ট এনুমারেশন চেক
  3. সাধারণ গণনা

Post a Comment

1 Comments